bengali

আগামী বছর উচ্চ মাধ্যমিকের মাসেই রয়েছে প্রথমবারের নিট পরীক্ষা, চিন্তায় ছাত্রছাত্রীরা

Webdesk | Monday, July 9, 2018 9:49 AM IST

আগামী বছর উচ্চ মাধ্যমিকের মাসেই রয়েছে প্রথমবারের নিট পরীক্ষা, চিন্তায় ছাত্রছাত্রীরা

আগামী বছর নিট পরীক্ষা হবে যে মাসে উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা রয়েছে সেই মাসেই। তাই দুটি বড় পরীক্ষা নিয়ে চিন্তিত ছাত্রছাত্রীরা। মেডিক্যালে ভর্তির সর্বভারতীয় অভিন্ন পরীক্ষা হলো নিট। উচ্চ মাধ্যমিকের দিনক্ষণ ইতিমধ্যেই ঘোষিত হয়েছে। আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৩ মার্চ পর্যন্ত রয়েছে পরীক্ষাগুলি। এখনও দিনক্ষণ ঘোষণা না হলেও, আইএসসি, সিবিএসই পরীক্ষাও মোটামুটি শুরু হয় ফি বছর ফেব্রুয়ারির শেষদিকে। 

কেন্দ্রীয় সরকার ‘ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি অ্যান্ড এগজামিনেশনস অ্যাহেড’ শীর্ষক যে প্রেস বার্তা প্রকাশ করেছে, তাতে সুস্পষ্টভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, আগামী বছর থেকে দু’বার করে নিট পরীক্ষা হবে। যে বারের ফল ভালো হবে, সেটিকেই গ্রাহ্য করা হবে ভর্তির জন্য। প্রেস বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, দু’বারের মধ্যে প্রথমবার নিট হবে আগামী বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে। নির্দিষ্টভাবে দিনক্ষণ না জানালেও ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে তৃতীয় সপ্তাহের মধ্যে। ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিট হওয়ার কথা। আর গোটা অক্টোবর মাসেই অনলাইনে নিটের আবেদনপত্র জমা নেওয়া হবে। কিন্তু, পরীক্ষা হবে ফেব্রুয়ারি মাসেই। 

ফলে কিছুটা হলেও দুশ্চিন্তায় পড়ে গিয়েছেন নিট প্রস্তুতির সঙ্গে যুক্ত ছাত্রছাত্রীরা। তার কারণ, এ বছরও উচ্চ মাধ্যমিক এবং নিটের সময়সীমার মধ্যে এক মাসের বেশি ফারাক ছিল। এছাড়া সিবিএসই’র পরিবর্তে ন্যাশনাল টেস্টিং এজেন্সি বা এনটিএ-র পরিচালনায় যে নিট হবে, সেটির সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে আছেন বহু ছাত্রছাত্রী। প্রথমত, এই প্রথম সর্বভারতীয় মেডিক্যাল প্রবেশিকা পরীক্ষা হবে অনলাইনে। আট ধরনের পৃথক প্রশ্নপত্র থাকবে। আঞ্চলিক ভাষাতেও পরীক্ষা দেওয়া যাবে। কিন্তু, আজ পর্যন্ত আঞ্চলিক ভাষায় অনলাইন পরীক্ষা হয়নি। প্রতিবার নিটে বাংলা তথা আঞ্চলিক ভাষার ভুলেভরা প্রশ্নপত্র নিয়ে বিতর্ক হয়েছে। এবার তো ১৮০টি প্রশ্নে ১৮১টি ভুল ছিল বলে অভিযোগ। ফলে ২০১৯ সালে অনলাইনে আঞ্চলিক ভাষায় কী প্রশ্ন হয়, সেটা নিয়ে ইতিমধ্যে চিন্তাভাবনা শুরু হয়ে গিয়েছে পরীক্ষার্থীদের একাংশের মধ্যে।
দ্বিতীয়ত, গ্রামেগঞ্জে নিট এবং অন্যান্য সর্বভারতীয় অনলাইন পরীক্ষাপদ্ধতি নিয়ে এনটিএ’র প্রচার করার কথা থাকলেও, আগামী বছর পরীক্ষা হবে শহরের অনলাইন কেন্দ্রে। ফলে দূর-দূরান্ত থেকে শহরে এসে থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা এছাড়া দু’বারে পরীক্ষা হলে পরীক্ষার ফি-ও বেড়ে যাবে। সব মিলিয়ে চিন্তায় পড়েছে পরীক্ষার্থীরা।