bengali

পরীক্ষা শুরুর দিনে বিভ্রান্তি, পর্ষদ জানালো ডিজিটাল ঘড়ি নয় মাধ্যমিকে

Webdesk | Tuesday, March 13, 2018 9:38 AM IST

পরীক্ষা শুরুর দিনে বিভ্রান্তি, পর্ষদ জানালো ডিজিটাল ঘড়ি নয় মাধ্যমিকে

গতকাল, সোমবার থেকে শুরু হয়েছে মাধ্যমিক পরীক্ষা। পরীক্ষাকেন্দ্রে সব ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করেছে বোর্ড ও রাজ্য সরকার। জানানো হয়েছে, কোন ধরনের ঘড়ি পরে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢোকা যাবে আর কোন কোন ঘড়ি নেওয়া যাবে না। কিন্তু তা নিয়ে প্রথমটায় বিভ্রান্তি ছড়িয়েছিল। সেই বিভ্রান্তি কাটাতে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ সোমবার জানিয়ে দিয়েছে, ডিজিটাল ঘড়ি পরে কোনও ছাত্র বা ছাত্রীকে পরীক্ষা কক্ষে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

পরীক্ষার দু’দিন আগে, পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় জানিয়ে দিয়েছিলেন, মোবাইল, ক্যালকুলেটর বা কোনও ইলেকট্রনিক গ্যাজেট নিয়ে পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা কেন্দ্রে যেতে পারবে না। কিন্তু সেই ইলেকট্রনিক গ্যাজেটের মধ্যে কোন ধরনের হাতঘড়িকে ধরা হবে, তা নিয়ে সোমবার, মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রথম দিনেই কয়েকটি স্কুলে বিভ্রান্তি ছড়ায়। চাবি দেওয়া ঘড়ি, ব্যাটারিচালিত ঘড়ি, ডি়জিটাল ঘড়ি ইত্যাদির মধ্যে কোন কোনটিকে ইলেকট্রনিক গ্যাজেটের তালিকায় ফেলা হবে, তা নিয়ে সুস্পষ্ট নির্দেশিকা না-থাকাতেই এই বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে বলে মত বিভিন্ন স্কুল-কর্তৃপক্ষের।

এই বিভ্রান্তির পরিপ্রেক্ষিতে এ দিন কল্যাণময়বাবু বলেন, ' সময় বোঝাতে যে-সব হাতঘড়িতে কাঁটা ব্যবহার করা হয়, পরীক্ষার্থীরা সেগুলো নিয়ে পরীক্ষা দিতে পারবে। তবে ডিজিটাল ঘড়ি (যাতে সংখ্যায় সময় দেখানো হয়) নিয়ে কেউ পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকতে পারবে না। '

ঘড়ি-বিভ্রান্তি ছাড়াও এ দিন হিন্দি ভাষার পরীক্ষায় কয়েকটি প্রশ্ন পাঠ্যক্রমের বাইরে থেকে এসেছে বলে অভিযোগ উঠেছিল বহু পরীক্ষার্থীর তরফে। পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ও শিক্ষা বিষয়ক কর্মচারী সমিতির সম্পাদক সুব্রত চক্রবর্তী বলেন, ' পরীক্ষার্থীদের ১২ নম্বর ছাড় দিতে হবে। ' 

পর্ষদ-প্রধান কল্যাণময়বাবু বলেন, ' কত নম্বরের ক্ষেত্রে সমস্যা হয়েছে, সেটা এখনই বলা যাচ্ছে না। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কমিটিতে পাঠিয়েছি। সেখান থেকে যে-সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে, সেটা পরে জানিয়ে দেব। ' এ দিন এসএসকেএম এবং রামকৃষ্ণ মিশন সেবা প্রতিষ্ঠান হাসপাতালে দু’জন পড়ুয়া পরীক্ষা দেন বলে জানিয়েছেন পর্ষদ-প্রধান।